আজ ভায়াল একুশে আগষ্ট। পৃথিবীর ইতিহাসের একটি জঘন্যতম দিন।গনতান্ত্রিক বিশ্বে এদিনটি একটি কালো দিবস হিসেবে চিন্হিত হয়ে থাকবে।আজকের এইদিনে বাংলাদেশে কথা বলার অধিকারকে চিরতরে স্তব্ধ বা বন্ধ কারার উদ্দেশ্যে বা স্বাধীনতার পক্ষশক্তিকে নিস্চিন্হ করার লক্ষে বিএনপি জামাত সরকারের প্রধান মন্ত্রি স্বাধীন বাংলার ঘঁসেটি বেগম খালেদা জিয়ার কুলাংগার সন্তান তারেক জিয়ার নির্দেশে তদান্তিন বিরোধী দলীয় নেতা মুজিব কন্যা শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে প্রকাশ্য জনসভায় গ্রেনেড ছুড়ে হত্যার পরিকল্পনা করে। আল্লাহ’র অশেষ রহমত ও স্বাধীনতার পক্ষ শক্তির সৃষ্ট মানব ঢাল এবং দেশপ্রেমিক জনগোষ্ঠির দোয়ার বরকতে তিনি বেঁচে গেলেও সাবেক রাষ্ট্রপতি মরহুম জিল্লুর রহমানের সহধর্মিনী আইভি রহমান সহ ২২ জন নেতা কর্মী নিহত এবং অর্ধ সহাস্রাধিক নেতা কর্মী আহত হন।পরম করুনাময় আল্লাহ তায়ালার কাছে এই দিনে নিহত সকল নেতা কর্মীকে শহীদের মর্যাদা দান সহ তাঁদেরকে বেহেস্ত নসিব করার জন্য দোয়া করছি এবং আহত নেতা কর্মীদের আরোগ্য কামনা করছি।

একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আগষ্ট এলেই বিশ্ব মানবতার মহান নেতা বিশ্ব বন্ধু বাঙালী জাতির পিতা বংগবন্ধু শেখ মুজিবকে রক্ষাকরতে না পারার ব্যর্থতা থেকে আমার হৃদপিন্ডে সৃষ্ট ক্ষত থেকে রক্ত ক্ষরন শুরু হয়। রক্তের ক্ষরন আরো বেগবান হয় ২১ আগষ্ট এলেই। তাই যতদিন না খুনিদের পরাস্ত করতে পারবো, ততদিন আমার এ ক্ষত শুকাবেনা; অথবা যতদিন না কেলেন্ডারের পাতা থেকে আগষ্ট মুছে না যাবে ততদিন আমাকে এ ক্ষত বয়ে বেড়াতে হবে।

লেখক: যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধা ও কৃষিবিদ
ই-মেইল:[email protected]