মো.শাহ জালাল : কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের কুরুইন গ্রামের সাবেক মেম্বার মো.আবদুল মান্নান এর ছেলে মুন্ডিফার্মা বাংলাদেশ প্রাইভেট লিঃ কুমিল্লা অঞ্চলে কর্মরত এমপিও মো.ওয়াহিদুর রহমান(৩৫)মঙ্গলবার দুপুর ২ টার দিকে করোনা উপসর্গ নিয়ে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (কুচাইতলি) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। রাতেই হ্যালো ছাত্রলীগের টিম ৪১ জানাজার নামাজ পড়িয়ে দাফন কাফনের ব্যবস্থা করেন। তার মৃত্যুতে আমাদের দেবিদ্বার পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক এ.টি.এম সাইফুল ইসলাম মাসুমসহ এলাকার বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংঘঠনের নেতৃবৃন্দ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।
কুমিল্লা-৪ (দেবিদ্বার) আসনের সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল এর নির্দেশনায় করোনা আক্রান্ত বা উপসর্গ নিয়ে কোন লোকজন মারা গেলে মৃত ব্যক্তির স্বজনরা এগিয়ে না আসলে এই সংবাদ পেলে দলমত নির্বিশেষে দাফন সম্পন্ন করেন ছাত্রলীগের আলোচিত ওরা ৪১জন টিম।
ছাত্রলীগের এই প্রশংসনিয় কাজের কারণে সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল এর মুখ উজ্জল হয়েছে। পুরো উপজেলার মানুষের মুখে মুখে এখন এই আলোচনা। ছাত্রলীগের ওই টিমটির জন্য মহান আল্লাহর কাছে হাজার হাজার মানষের দোয়া প্রার্থনা।
কুমিল্লা (উ:) জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু কাউছার অনিক এবং উপজেলা ছাত্র লীগের আহবায়ক মো.ইকবাল হোসেন রুবেলের নেতৃত্বে লাশ দাফনে ছুটে যান হ্যালো ছাত্রলীগ।
কুরুইন এর ওই জানাজা ও দাফনে কাজে উপস্থিত ছিলেন ওরা ৪১ জনের টিমের মোঃ বিল্লাল হোসাইন,আব্দুল্লাহ আল মামুন, তোফায়েল খান, আরিফ খান জয়, তুহিন, নাসির হোসাইন, রিয়াদুল হাসান পিয়াল, কামরুল হাসান, মোঃ আবির, মো.খোকন, মো রাজু, মোঃ জুলহাস মিয়া, হাফেজ তোফায়েল মাহমুদ, মাওলানা খালেদ মাহমুদ, হাফেজ কামাল উদ্দিন, হাফেজ আলাউদ্দিন ভুইয়াসহ আরো অনেকে। জানাজার নামাজ পড়ান হাফেজ আবদুল্লা-আল-মামুন।
উল্লেখ্য দেবিদ্বার উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত বা উপসর্গ নিয়ে এ পর্যন্ত যত মানুষ মারা গেছে তাদের জানাজা দাফন কাফন ছাত্রলীগের কর্মিরাই করেছেন।