আবুল বাশার,দেবিদ্বার : কুমিল্লায় করোনাভাইরাসে মৃত লাশ যখন উঠানে পড়ে থাকতো, সেই লাশ কাঁদে তুলে নিয়েছেন। এভাবে ১৪ জনের কাফন-দাফনের ব্যবস্থা করেছেন। হাসপাতালের পরিচ্ছন্ন কর্মী করোনা আক্রান্ত, হাতে তুলে নিয়েছেন ঝাড়ু। দুঃস্থ মানুষকে খাবার পৌঁছাতে গড়েছেন ‘হ্যালো ছাত্রলীগ’ টিম, করোনা রোগীদের চিকিৎসায় মেডিকেল টিম, কৃষকের ধান কেটেছেন, করোনা রোগীদের জন্য করেছেন ‘ব্লাড ব্যাংক’।

এছাড়া দেবিদ্বার উপজেলা বিএনপির সভাপতির লাশ দাফন করে মানুষের প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন হ্যালো ছাত্রলীগ টিম।

সূত্র জানায়, গত মঙ্গলবার দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিচ্ছন্ন কর্মীর করোনা পজিটিভ হওয়ায় পুরো কমপ্লেক্স পরিস্কার করেন আবু কাউছার অনিক এবং ইকবাল হোসেন রুবেলসহ তার সহকর্মীরা।

করোনায় আক্রান্ত আবু কাউছার অনিক জানান, করোনা পজিটিভ হওয়ায় তেমন কষ্ট পাচ্ছি না। কষ্ট লাগছে এখন কিছুদিন মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারবো না। মানবিক কাজগুলো যেন থেমে না থাকে সেই নির্দেশনা দিয়েছেন নেতাকর্মীদের। তিনি বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছেন।
দোয়া চেয়েছেন সবার কাছে। যেন করোনা জয় করে আবার ফিরতে পারেন।

করোনায় আক্রান্ত অপর যোদ্ধা উপজেলা ছাত্রলীগ’র আহবায়ক ও দেবিদ্বার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন রুবেল জানান করোনার দূর্যোগের শুরু থেকে স্থানীয় সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল এমপি মহদ্বয়ের নির্দেশনায় ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দদের নিয়ে টিম গঠন করে হ্যালো ছাত্রলীগের ব্যানারে ত্রাণ সহায়তা অব্যাহত রেখেছেন, শুধু তাই নয়, কৃষকের ধান কাটা,মারাই করে বাড়ি পৌঁছে দেওয়া, করোনায় মৃত্যু ব্যক্তির জানাযা দাফন সহ সার্বক্ষণিক জনগণের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। কয়েকদিন আগে ছাত্রলীগের এমন মহৎ কাজগুলোর জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগকে ধন্যবাদ দিয়েছেন। সেই সাথে তিনি সকলের নিকট দোয়া চেয়েছেন।

মানবতার জন্য নিবেদিত প্রান আবু কাউছার অনিক ও ইকবাল হোসেন রুবেলরা এহেন কাজের জন্য বেচে থাকুক জনগণের হৃদয়ে।

দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আহমেদ কবির জানান, আবু কাউছার অনিক এবং ইকবাল হোসেন রুবেলের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। তারা বাসায় অবস্থান করে চিকিৎসা নিচ্ছেন।