স্টাফ রিপোর্টার : কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার কালির বাজারে দিনদিন বেড়েই চলেছে হত্যা চুরি মাদক সহ নানা অপরাধ অপকর্ম। রাজনৈতিক নেতা ও জনপ্রতিনিধিদের আশ্রয় প্রশ্রয়ে স্থানীয় এবং বহিরাগত সন্ত্রাসীদের অপরাধীদের অভয়ারণ্যে পরিনত হয়েছে। প্রতিদিনই ঘটছে নানা অপ্রীতিকর ঘটনা। সাম্প্রতিক সময়ে বেড়েছে মাদক, চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই ও মারামারি এবং ঘটছে খুনের একাধিক ঘটনা। বহিরাগত মাদকসেবী ও সন্ত্রাসীদের আনাগোনায় প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকাটি লগডাউন ও মহামারী পরিস্থিতিও সরগরম। প্রতিদিনই কোন না কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেই চলেছে শহরতলীর শান্ত এই ইউনিয়ন জুড়ে। দেশের শীর্ষ আন্তর্জাতিক মাদক কারবারি সিন্ডিকেটের বিশাল একটি চক্রও রয়েছে এ ইউনিয়ন এলাকায়। দিনদিন ঘোলাটে হওয়া এলাকার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে স্থানীয় সচেতন মহল ও প্রবাসী পরিবারগুলো রয়েছে উদ্বেগ উৎকন্ঠায়!

গত কয়েকদিন আগে কমলাপুর এলাকায় পুত্রদের হাতে পিতা খুনের রেশ না কাটতেই গতকাল বুধবার সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্য বাজারে হাত ও পায়ের রগ কেটে মো.পারভেজ হোসেন (৩৫) নামের এক যুবককে নৃশংস ভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে। নিহত পারভেজ উপজেলার কালিরবাজার ইউনিয়নের কমলাপুর গ্রামের মো.আবদুল মবিনের ছেলে। কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানাধিন নাজির বাজার ফাঁড়ির এস আই মো.মাহবুবুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, দূর্বত্তরা এক যুবককে মারধর করছে শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।
নিহত পারভেজ হোসেনের ভগ্নিপতি সোহেল ভুইয়া জানান, নিহত পারভেজ একজন গাড়ি ব্যবসায়ী। সে বুধবার সন্ধ্যা ৬টায় কালির বাজার ইউনিয়নের সৈয়দপুর বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন এলাকায় আসলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সেকান্দারের পেটুয়া বাহিনীর শাহিন,সাদ্দাম ও কাউসারের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই পারভেজের উপর হামলা চালায়। মারধরের পর তাকে অস্ত্রের মুখে সৈয়দপুর এলাকা থেকে তুলে নিয়ে কমলাপুর বাজারের কামাল মিয়ার স’মিলে আটকে রেখে এলোপাতারী কোপাতে থাকে। সন্ত্রাসীরা একপর্যায়ে তার হাত ও পায়ের রগ কেটে ফেলে। খবর পেয়ে আমি নাজির বাজার পুলিশ ফাঁড়ির এস আই মাহবুব কে নিয়ে ঘটনাস্থলে গেলে কালির বাজারের ত্রাস শাহীন, কামাল, সাদ্দাম সহ অন্যান্য সন্ত্রাসীরা পুলিশ দেখে পালিয়ে যায়। পরে নাজিরা বাজার ফাঁড়ি পুলিশের গাড়িতে করে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় তাকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষনা করে।
এ বিষয়ে কালির বাজার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাজী সেকান্দর আলী বলেন, নিহত পারভেজ একজন চিহ্নিত সন্ত্রাস এবং তার বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। ডাকাতি করতে গিয়ে কমলাপুর এলাকায় গণপিটুনিতে নিহত হয়েছে।
এ বিষয়ে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.আনোয়ারুল হকের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, থানায় এখনো কোন মামলা হয়নি। ঘটনার বিস্তারিত এখনো জানা যায়নি। তবে আমি শুনেছি নিহত পারভেজের বিরুদ্ধে কয়েকটি মামলা রয়েছে।