ডেস্ক রিপোর্ট ; করোনা পরিস্থিতিতে আগামী নভেম্বর মাস পর্যন্ত ভারতের ৮০ কোটি মানুষকে বিনামূল্যে খাদ্য সহায়তা অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

প্রধানমন্ত্রীর ‘গরিব কল্যাণ অন্ন যোজনা’ নামের এই প্রকল্পের আওতায় দেশের দরিদ্রতম পরিবারগুলোকে মাথাপিছু পাঁচ কেজি চাল অথবা গম, এক কেজি ডাল ও এক কেজি ছোলা সহায়তা দেয়া হবে।

মঙ্গলবার (৩০ জুন) করোনা পরিস্থিতি নিয়ে জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে মোদি বলেন, এটাই উপযুক্ত সময় এক রাষ্ট্র এক রেশন কার্ডের জন্য পদক্ষেপ নেয়ার। তাই সূচনা পর্বে এই বিনামূল্যে রেশনের মেয়াদ বাড়িয়ে দিচ্ছে কেন্দ্র সরকার।

ভাষণের শুরুতেই মোদি বলেন, এখন সর্দি কাশি হওয়ার সময়। সবাই নিজের যত্ন নেবেন। বিশ্বের অন্য দেশের তুলনায় ভারতের অবস্থা ভাল। সঠিক সময়ে নেয়া সঠিক সিদ্ধান্ত- যেমন লকডাউন, এর ফলে কয়েক লক্ষ মানুষের প্রাণ বাঁচানো সম্ভব হয়েছে। তবে আনলক ওয়ান শুরু হওয়ার পর মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব নিয়ে কিছুটা গাফিলতি দেখা গেছে।

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে প্রধানমন্ত্রী মোদি জানান, অনেক জায়গায় সুরক্ষা বিধি উপেক্ষা করা হয়েছে যারা নিয়ম মানছেন না তাদের থামাতে হবে এবং বোঝাতে হবে। সম্প্রতি এক দেশের প্রধানমন্ত্রীকে ১৩ হাজার টাকার জরিমানা করা হয়েছে মাস্ক না পরার জন্য। ভারতেও তেমনটাই করতে হবে। দেশের প্রধান হোক বা গ্রামের প্রধান কেউই নিয়মের উর্ধ্বে নন।

করোনা আবহে আর্থিক প্রণোদনার কথা উল্লেখ করে মোদি বলেন, প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ অন্ন যোজনায় গত তিন মাসে ৮০ কোটি মানুষকে বিনামূল্যে রেশন দেয়া হয়েছে। দেখতে গেলে আমেরিকার মত জনসংখ্যার আড়াই গুণ বেশি মানুষকে ফ্রি রেশন দেয়া হয়েছে। দীপাবলী ও ছটপূজার কথা মাথায় রেখে নভেম্বর পর্যন্ত বিনামূল্যে রেশন দেয়া হবে।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস